রবিবার ১৪ অগাস্ট ২০২২



শস্যবাহী জাহাজ ওদেসা বন্দর ছেড়েছে


আলোকিত সময় :
01.08.2022

আলোকিত সময় ডেস্ক :

২৪ ফেব্রুয়ারি রাশিয়ার আগ্রাসন শুরুর পর থেকে ইউক্রেনের বন্দর হয়ে শস্য রপ্তানি বন্ধ হয়ে যায়। তবে শস্য রপ্তানির জট খোলার আভাস মিলেছিল এ বিষয়ে একটি চুক্তি হওয়ার পর। সোমবার প্রথম শস্যবাহী জাহাজ ইউক্রেনের ওদেসা বন্দর ছেড়ে যাওয়ার মাধ্যমে চলমান অচলাবস্থার নিরসন হলো। এ বিষয়টিকে মস্কো ও কিয়েভ উভয়েই স্বাগত জানিয়েছে।

ক্রেমলিনের মুখপাত্র দিমিত্রি পেসকভ শস্য রপ্তানি শুরুর বিষয়কে স্বাগত জানিয়ে একে ‘খুবই ইতিবাচক’ সংবাদ হিসেবে অভিহিত করেছেন।

তিনি বলেন, শস্যবাহী প্রথম জাহাজ বন্দর ছেড়েছে, এটি খুবই ইতিবাচক। ইস্তান্বুলে আলোচনার সময় আমরা যেসব বিষয়ে একমত হয়েছিলাম তার কার্যকারিতা পরীক্ষার একটি বড় সুযোগ এটি।

তিনি আরও বলেন, ‘আশা করি, চুক্তি সব পক্ষ থেকে পরিপূর্ণভাবে পালিত হবে এবং প্রক্রিয়া যথাযথভাবে কাজ করবে।’

এদিকে শস্যবাহী জাহাজ ওদেসা বন্দর ছেড়ে যাওয়ার ঘটনাকে স্বাগত জানিয়েছে ইউক্রেনও।

দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী স্বাগত জানিয়ে বলেন, এটি ‘বিশ্বের জন্য  স্বস্তি’।

টুইটারে দিমিত্রি কুলেবা বলেন, আজকের দিনটি বিশ্বের জন্য স্বস্তির। বিশেষ করে মধ্যপ্রাচ্য, এশিয়া এবং আফ্রিকায় আমাদের বন্ধুদের জন্য। রাশিয়ার দীর্ঘ অবরোধের পর প্রথম ইউক্রেনের শস্য নিয়ে জাহাজ ওদেসা বন্দর ছাড়ল। ইউক্রেন নির্ভরযোগ্য অংশীদার ছিল এবং রাশিয়া যদি চুক্তিকে সম্মান করে তবে সবসময় থাকবে।

তুর্কিয়ের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় জানায়, সোমবার ইউক্রেনের ওদেসা বন্দর ছেড়ে যাওয়া সিয়েরা লিওনের পতাকাবাহী জাহাজটির নাম রাজোনি। এটি বোঝাই করা হয়েছে ভুট্টা দিয়ে। জাহাজটি যাবে লেবাননে।

জাতিসংঘ এক বিবৃতিতে জানায়, ওই জাহাজে ২৬ হাজার টনের বেশি ভুট্টা বোঝাই করা হয়েছে।

ইউক্রেন অন্যতম শস্য উৎপাদনকারী দেশ এবং বিশ্ববাজারে অন্যতম সরবরাহকারীও। কিন্তু মস্কো দেশটিতে আগ্রাসন চালানো ‍শুরুর পর থেকেই তারা শস্য রপ্তানি করতে পারছিল না।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি