রবিবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২



সৌদি প্রবাসীদের প্রতি আহ্বান বৈধ পথে রেমিট্যান্স পাঠান


আলোকিত সময় :
13.08.2022

আলোকিত সময় ডেস্ক :

দেশকে ভালোবেসে দেশের প্রয়োজনে বৈধ পথে তথা ব্যাংকিং চ্যানেলে দেশে রেমিট্যান্স প্রেরণে সৌদি প্রবাসীদের প্রতি আহবান জানিয়েছেন রাষ্ট্রদূত ড. মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী বিপিএম (বার)।

সম্প্রতি তিনি রিয়াদস্থ বাংলাদেশ দূতাবাসে ‘বৈধ পথে রেমিট্যান্স প্রেরণের প্রয়োজনীয়তা, প্রতিবন্ধকতা ও সমাধানের উপায়’ শীর্ষক আয়োজিত এক সেমিনারে এসব কথা বলেন।

রাষ্ট্রদূত বলেন, ‘সৌদি আরবে বসবাসরত প্রায় ২৬ লাখ প্রবাসী বাংলাদেশি বৈধ পথে রেমিট্যান্স প্রেরণ করলে দেশে ডলারের রিজার্ভ আরও বৃদ্ধি পাবে।’

রাষ্ট্রদূত মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী বলেন, ‘বিগত অর্থবছরে বিদেশ থেকে দেশে রেমিট্যান্স গেছে প্রায় ২১ বিলিয়ন মার্কিন ডলার, যার মধ্যে সৌদি আরব প্রবাসীরা পাঠিয়েছেন প্রায় ৪.৫ বিলিয়ন ডলার। দেশে প্রেরিত রেমিট্যান্স এর মধ্যে সৌদি প্রবাসীরাই সর্বোচ্চ রেমিট্যান্স পাঠিয়েছেন। এজন্য সৌদি প্রবাসীদের আন্তরিক ধন্যবাদ ও অভিনন্দন জানান রাষ্ট্রদূত। রেমিট্যান্স প্রেরণে প্রতিবন্ধকতাগুলো দূর করে আরও সহজে দেশে রেমিট্যান্স প্রেরণের জন্য সম্ভাব্য সব পদক্ষেপ নেওয়া হবে।’

রাষ্ট্রদূত বিদেশে আসার আগে সবাইকে অবশ্যই একটি ব্যাংক একাউন্ট খুলে আসার আহবান জানান। তাহলে সহজেই যার যার নিজস্ব একাউন্টে টাকা পাঠানো ও তার হিসাব রাখা সহজ হয় বলে উল্লেখ করেন। প্রবাসীদের সময়মত নিজের পাসপোর্ট ও ইকামার মেয়াদ হালনাগাদ রাখার পরামর্শ দেন রাষ্ট্রদূত। কারণ ইকামার মেয়াদ না থাকলে বৈধপথে রেমিট্যান্স পাঠানো সম্ভব হয় না। তাই এ বিষয়ে প্রবাসীদের সচেতন থাকার আহবান জানান তিনি।

রাষ্ট্রদূত মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী বলেন, ‘রাশিয়া–ইউক্রেন যুদ্ধের কারণে বিশ্ববাজারে জ্বালানি তেলসহ বিভিন্ন প্রয়োজনীয় পণ্যের মূল্য বৃদ্ধিতে আমাদের আমদানি ব্যয় বৃদ্ধি পেয়েছে।’ বর্তমান পরিস্থিতিতে দেশের আমদানি ব্যয় মেটানো ও দেশের অর্থনীতি গতিশীল রাখার লক্ষ্যে বৈধপথে তথা ব্যাংকিং চ্যানেলে দেশে অর্থ প্রেরণের জন্য প্রবাসীদের প্রতি আহবান জানান রাষ্ট্রদূত।

রাষ্ট্রদূত বলেন, ‘বৈধ পথে রেমিট্যান্স পাঠালে আপনার পরিবারের প্রয়োজন মেটানোর পাশাপাশি দেশের উন্নয়নে আপনার অবদান নিশ্চিত হয়। এছাড়া দেশে আপনার আয় বৈধ বলে বিবেচিত হয়। একইসঙ্গে সরকার ঘোষিত ২.৫ শতাংশ হারে প্রণোদনাও পাওয়া যায়। প্রবাসী আয়ে সম্পূর্ণ করমুক্ত সুবিধাও পাওয়া যায়। বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা বাস্তবায়নে ও প্রধানমন্ত্রীর ভিশন ২০৪১ বাস্তবায়নে আসুন সবাই বৈধ পথে রেমিট্যান্স প্রেরণ করি।’

সেমিনারে রিয়াদের ব্যবসায়ী, চিকিৎসক, প্রকৌশলী ও বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকসহ বিভিন্ন শ্রেণিপেশার অভিবাসীরা যোগ দেন। সৌদি আরবের জেদ্দা, দাম্মাম, তাবুকসহ বিভিন্ন শহরের অভিবাসীরা জুমের মাধ্যমে অনুষ্ঠানে যোগ দেন। ২৬ জন প্রবাসী সেমিনারে অনুষ্ঠানে তাদের বিভিন্ন মতামত, প্রশ্ন ও সুপারিশ তুলে ধরেন। প্রবাসীরা অভিবাসীদের সরকারের পেনশনের আওতায় আনার দাবি জানান। দূতাবাসের কর্মকর্তারা এসময় প্রবাসীদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন ও তাদের সুপারিশগুলো যথাযথ কর্তৃপক্ষের কাছে পৌঁছে দেওয়া হবে বলে আশ্বস্ত করেন।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি