মঙ্গলবার ২৫ জুন ২০২৪



৩৪ বছর আত্মগোপনে থাকা চাচার খুনি বশিরকে গ্রেফতার করল র‌্যাব-৭ চট্টগ্রাম


আলোকিত সময় :
21.05.2023

রাজু চৌধুরী, চট্টগ্রাম প্রতিবেদক :

চট্টগ্রামের হাটহাজারীতে আপন চাচাকে হত্যার দায়ে যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত পলাতক আসামী ভাতিজা বশির আহাম্মদ’কে দীর্ঘ ৩৪ বছর পর রাঙ্গামাটি হতে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-৭ চট্টগ্রাম।
শুক্রবার ১৯ মে আনুমানিক ভোর ৩ টা ২০ মিনিটের দিকে রাঙামাটি থেকে গ্রেফতার করে।
সাজা প্রাপ্ত খুনি বশির গ্রেফতার এড়াতে দীর্ঘ ৩৪ বছর যাবৎ চট্টগ্রাম ও রাঙ্গামাটি জেলা সহ দেশের বিভিন্ন স্থানে আত্মগোপন করে ছিল।
জানা যায়, খুন হওয়া মকবুল হোসেন এবং গ্রেফতার হওয়া আসামী বশির আহাম্মদ সম্পর্কে চাচা ভাতিজা হয়। দীর্ঘদিন ধরে তাদের মধ্যে পৈত্রিক সম্পত্তির ভাগ-বন্টন নিয়ে পারিবারিক বিরোধ চলে আসছিল। এক পর্যায়ে আসামী বশির আহাম্মদ (৫৫) ও তার সহযোগী আসামীরা মকবুল হোসেন (২৫)’কে ছুরিকাঘাতে ১৯৮৯ সালের ১৩ ফেব্রুয়ারি নৃশংসভাবে হত্যা করে। হত্যার এ ঘটনায় ভিকটিমের স্ত্রী বাদী হয়ে আসামী বশির আহাম্মদ এবং আরও ৭-৮ জনকে আসামী করে চট্টগ্রাম জেলার হাটহাজারী থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। হত্যা মামলাটি রুজুর পর হতে আসামী বশির আহাম্মদ গ্রেফতার এড়াতে এলাকা ছেড়ে আত্মগোপনে চলে যায়। এইদিকে বিজ্ঞ আদালত দীর্ঘ বিচার কার্যক্রম শেষে আসামীর অনুপস্থিতিতে গত ১৯ নভেম্বর ১৯৯২ইং সালের ১৯ নভেম্বর উক্ত হত্যা মামলায় প্রধান আসামী বশির আহাম্মদকে যাবজ্জীবন কারাদন্ড প্রদান করে গ্রেফতারী পরোয়ানা জারি করেন।
র‌্যাব-৭, চট্টগ্রাম উল্লেখিত এই হত্যা মামলার যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত পলাতক আসামী বশিরকে গ্রেফতারের লক্ষ্যে গোয়েন্দা নজরদারী এবং ছায়াতদন্ত অব্যাহত রাখে। নজরদারীর এক পর্যায়ে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে রাঙ্গামাটি জেলার রাঙ্গামাটি সদর থানাধীন মুসলিম পাড়া এলাকায় অবস্থান করাকালীন অভিযান পরিচালনা করে আসামী বশির আহাম্মদ (৫৫) কে গ্রেফতার করে। তার পিতা- নুর আহাম্মদ। বশির হাটহাজারী থানার চারিয়া এলাকার বাসিন্দা।


এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি