মঙ্গলবার ২৫ জুন ২০২৪



মুড়ির মোয়ায় ১২ হাজার ইয়াবা পাচারের সময় আটক এক মাদক কারবারী


আলোকিত সময় :
23.05.2023

রাজু চৌধুরী, চট্টগ্রাম প্রতিবেদক :

অভিনব কৌশলে বিভিন্ন পন্থায় মাদকদ্রব্য পাচারে সক্রিয় মাদক ব্যাপারী চক্র, বিভিন্ন সময় গ্রেফতার হওয়ার পর প্রকাশ পায় তাদের কৌশল, এবার মুড়ির মোয়ার ভেতর ১২ হাজার ইয়াবা পাচারের সময় এক কারবারিকে গ্রেপ্তার করেছে র‍্যাব-৭ , চট্টগ্রাম।
রোববার (২২ মে) চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কের কর্ণফুলী এলাকায় চেকপোস্ট তল্লাশী করার সময় প্রিয়তোষ মজুমদার (৫০) নামের ওই মাদক কারবারিকে গ্রেপ্তার করা হয়। প্রিয়তোষ আনোয়ারা উপজেলার মধ্যম বারখাইনের মানিক মজুমদারের ছেলে।
র‍্যাব-৭, চট্টগ্রাম এর সিনিয়র সহকারী পরিচালক, সহকারী পরিচালক মিডিয়া এএসপি নূরুল আবছার বলেন, ‘গোপন সংবাদের ভিত্তিতে চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কের কর্ণফুলী থানা অংশে চেকপোস্ট বসিয়ে ১২ হাজার ইয়াবাসহ প্রিয়তোষকে আটক করা হয়।  র‍্যাব সদস্যরা তাঁর ব্যাগ তল্লাশি করে প্রাথমিকভাবে কোনো মাদকদ্রব্য পাননি। পরবর্তীতে তাঁর ব্যাগের মধ্যে সংরক্ষিত তিন প্যাকেট মুড়ির মোয়ার ওজন দেখে সন্দেহ হয়। পরবর্তীতে একটি মোয়া ভেঙে দেখা যায় তার ভেতরে পলিথিন ও স্কচটেপ দিয়ে বিশেষ পদ্ধতিতে ইয়াবা সংরক্ষণ করে রাখা।
তার বিরুদ্ধে কর্ণফুলী থানায় মাদক আইনে মামলা হয়েছে। সোমবার দুপুরে তাঁকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে বলেও জানান র‍্যাব-৭ কর্মকর্তা মো. নূরুল আবছার। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে প্রিয়তোষ জানিয়েছেন, দীর্ঘদিন যাবৎ কক্সবাজার থেকে মাদকদ্রব্য কিনে প্রিয়তোষ বিভিন্ন সময় বিভিন্ন পদ্ধতি অনুসরণ করে ইয়াবাসহ অন্যান্য মাদকদ্রব্য চট্টগ্রাম মহানগরীর বিভিন্ন স্থানে পাচার এবং পাইকারি ও খুচরা বিক্রি করেন।প্রিয়তোষের কাছে পাওয়া তিনটি মুড়ির মোয়ার প্যাকেটে মোট ২৭টি মোয়ার ভেতরে সর্বমোট ১২ হাজার ইয়াবা উদ্ধার করা হয়। উদ্ধারকৃত মাদকদ্রব্যের আনুমানিক মূল্য ৩৬ লাখ টাকা বলেও জানান এই র‍্যাব কর্মকর্তা।


এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি